[প্রথম প্রকাশ ব্লগ | হিউম্যানস অব ঠাকুরগাঁও-এ এপ্রিল ১১, ২০১৭ তারিখে]

আমার ঘুমে পড়বে এশা, কাটবে নেশা ঘুমের

আমার ঘুমেই বুঁদ হব যে, সুদ নেব আজ খুনের।

 

নেশায় আমি মত্ত যে রোজ, তত্ত্ব যে দেই ভোটের

দলকে এবার জিততে হবে, দশ দলীয় জোটের।

দল হল খুব, মাল হল চুপ, আজ আমি তো রাজা

দলের প্রতিক এবার দেব সত্যি তিলের খাজা।

খাজাও হবে, গাঁজাও হবে আরও হবে সুরা

সুরায় মাতাল দল হবে যে, মজাও হবে পুরা।

প্রচারনায় নামবে লোকে খাজা-গাঁজা-সুরায়

দলটা এবার জিইত্যা গেলে দেশকে দিব ঘুরায়।

দেশের ভাল, দশের ভাল, নেশা ভাল সবার

জাতীয় খেলা হবে সুরার, কে খেল পেগ কবার।

গাঁজার হবে অনুমোদন, ট্যাটু দেব এঁকে

জিইত্যা গেলে দেইখা নিয়েন মন্ত্রী বানাই কাকে!

মন্ত্রী হবে, তন্ত্রী ভরে ঢুকবে কেরুর মাল

কোটায় কোটায় পুরিয়ে দেব পানির তিস্তা খাল।

মোদি দাদা দিবেন কারেন্ট, জল দেবেন যে দিদি

চুক্তি শেষে দেখবে লোকে ইন্ডিয়াকে কি দি।

ট্রানজিট সব বন্ধ হবে, চুক্তি হবে অন্ধ

দেশটা আমার, খেতাও শালার পাকি খুনের রন্ধ্র।

বন্ধ হবে মিডিয়া আর পুটুন দাদার খবর

ডাইভার্ট যা করতে পারো, মাইরি তোমরা জবর!

শান্ত হবে শাকিব খান আর অপু আপু, জয়

দফা কবে রফা হবে, এখন এরই ভয়।

তবুও আমার ভোটটা হবে, পেটটা হবে ভরা

আমার সাথে কেরু খাবি? ভোট দিস প্লিজ তোরা।

 

অবশেষে আসল সুদিন, ইসি গেলাম সেজে

আমার সাথে ভোটে দাঁড়ায়…, বুইঝা নিয়েন নিজে।

 

কদিন পরে আসল চিঠি, পিঠাপিঠি পাঁচটা

লিখসে আমায়- ‘গলদ গোঁড়ায়, উপড়ে ফেল গাছটা।’

 

থাকো তোমার গলদ নিয়ে, ভোটটা আমি করবই।

দশটা দল রে সাথে নিয়ে যুদ্ধ আমি লড়বই।

 

দুদিন পরে উধাও সবাই, শুধাও কেন একা?

কেরুর জোড়ে সব শালারা দিয়ে গেল ছ্যাকা।

 

আর হল না ভোট গণনা, নেশায় দিলাম ঘুম

ঘুমের মাঝেই পিএম হলাম, হলাম আরও গুম।

দলটা আমার গেল ছুটে, স্বপ্ন রইল কোমায়

খাজা-গাঁজা-কেরু খেয়ে দলের সবাই ঘুমায়।

 

আজ খেয়েছি ঘাস-পাতা আর পেগ গিলেছি কবার

নেশার চোটে তলিয়ে গেলাম, ফার্স্ট আমি যে সবার।

আমার ঘুমে পড়বে এশা, কাটবে নেশা ঘুমের

আমার ঘুমেই বুঁদ হব যে, সুদ নেব আজ খুনের।

মন্তব্য করুন